মন্ডতোষ ইউপি নির্বাচনে নৌকার কর্মীদের বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থীকে মারধরের অভিযোগ

পাবনা জেলার ভাঙ্গুড়া উপজেলার মন্ডতোষ ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী নুর ইসলাম মিন্টুকে (ঘোড়া মার্কা) পথরোধ করে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আফসার আলীর কর্মী ও সমর্থকদের বিরুদ্ধে। গতকাল শনিবার রাত ৯টার দিকে ইউনিয়নের মেন্দা খালপাট গ্রামের নির্জন সড়কে এই হামলার ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

স্বতন্ত্র প্রার্থী নুর ইসলাম মিন্টু মন্ডতোষ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। এই হামলার ঘটনায় তিনি ভাঙ্গুড়া থানায় লিখিতভাবে অভিযোগ দায়ের করেছেন। তবে এ অভিযোগের বিষয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আফসার আলী তার কর্মীদের সঙ্গে স্বতন্ত্র প্রার্থী মিন্টুর সামান্য হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, নুর ইসলাম মিন্টু গত ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আফসার আলীর বিএনপি মনোনীত প্রার্থীর কাছে ভরাডুবি হয়। তারপর থেকেই আফসার আলীর কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে নুর ইসলাম মিন্টুর দীর্ঘদিন ধরে মনোমালিন্য চলে আসছিল। এই পরিস্থিতিতে এবারের নির্বাচনেও নৌকা প্রতীক না পেয়ে নুর ইসলাম মিন্টু স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়।

এর ফলে আফসার আলীর কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে মিন্টুর সম্পর্কের অবনতি ক্রমান্বয়ে আরোও বাড়তে থাকে। এর পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল শনিবারে রাত ৯টার দিকে নির্বাচনী প্রচারণার জন্য মোটরসাইকেল করে কর্মীদের নিয়ে দিয়ারপাড়া থেকে দহপাড়া অভিমুখে রওনা দেন। পথে মেন্দা খালপাট এলাকায় পৌঁছালে নৌকার প্রার্থী আফসার আলীর ভাই গফুর আলির নেতৃত্বে ১০/১২ জন যুবক লাঠিসোটা নিয়ে নুর ইসলাম মিন্টু ও তার কর্মীদের ‌ওপর হামলার ঘটনা ঘটায়। এতে অনেকেই গুরুতর আহত হয়। এ সময় তাদের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা চলে যায়।

এ বিষয়ে মিন্টু বলেন, আমাকে নির্বাচনী মাঠ থেকে সরিয়ে দিতে আফসার আলী তার আত্মীয়-স্বজনসহ গুণ্ডাবাহিনী দিয়ে নানা ধরনের হুমকি-ধামকি দিচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে। একপর্যায়ে গতকাল রাতে আমিসহ আমার কর্মীদের ওপর তারা অতর্কিত হামলা চালায়। এতে আমরা সবাই গুরুতর আহত হয়ে ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হই। তবে ঘটনার পর থেকেই অভিযোগ দিতে থানায় অবস্থান করছি।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আফসার আলী বলেন, নুর ইসলাম মিন্টু বাহিরের লোকজন নিয়ে এসে নির্বাচনী এলাকায় নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে আমার লোকজনের সঙ্গে মিন্টু ও তার কর্মীদের সামান্য হাতাহাতি হয়েছে। মিন্টু এই এলাকায় দাপট দেখাতে পার্শ্ববর্তী গুনাইগাছা থেকে গুন্ডা বাহিনী নিয়ে এসে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছে। তবে এ বিষয়ে আমি কাউকে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে নির্দেশ দেইনি। আমি প্রচারণা নিয়ে সর্বদা ব্যস্ত আছি।

নুর ইসলাম মিন্টুর লিখিত অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে ভাঙ্গুড়া থানার এসআই আবুল কালাম বলেন, অভিযোগের বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আগামীকাল ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে স্থানীয় প্রশাসন এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেবে।
সূত্র: দৈনিক কালের কন্ঠ